Wellcome to National Portal
মেনু নির্বাচন করুন
Main Comtent Skiped

পল্লী বিদ্যুৎ সংক্রান্ত যেকোনো তথ্য ও সমস্যা জানাতে কল করুন ১৬৮৯৯ এই নাম্বারে।


জেনারেল ম্যানেজার এর বাণী

“বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম”

মাগুরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি এর ২৪ তম বার্ষিক সাধারণ সভার সম্মানিত সভাপতি, সমিতি বোর্ডের সম্মানিত পরিচালক ও মহিলা পরিচালকবৃন্দ,  উপস্থিত সম্মানিত গ্রাহক সদস্যবৃন্দ, আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ,গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ ও সুধীমন্ডলী আসসালামু আলাইকুম। শিশির ভেজা শীতের সকালে দূর-দূরান্ত থেকে অনেক কষ্ট স্বীকার করে অত্র সমিতির ২৪ তম বার্ষিক সাধারণ সভায়  যোগদান করায় সমিতি ব্যবস্থাপনার পক্ষ থেকে আপনাদেরকে জানাই প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।



সম্মানিত সুধীমন্ডলী,

গ্রামীণ আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে ১৯৭২ সালে প্রণীত আমাদের পবিত্র সংবিধানের ১৬ নং অনুচ্ছেদে প্রতিটি গ্রামে বিদ্যুৎ সুবিধা পৌঁছে দিয়ে শহর ও গ্রামের মধ্যকার বৈষম্য দূর করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় ১৯৯৬ সালের ২৭ এপ্রিল মাগুরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি আনুষ্ঠানিকভাবে বিদ্যুৎ বিতরণ শুরু করে । শুরু থেকে অক্টোবর ২০২৩ পর্যন্ত সমিতির আওতাভুক্ত ০৪ (চার)টি উপজেলা ৪৮১৫.৯৮১ কিঃমিঃ বিদ্যুৎ বিতরণ লাইন ও ০৯টি ৩৩/১১কেভি বৈদ্যুতিক উপকেন্দ্র নির্মানের মাধ্যমে ২,৫৯১২৫ টি সংযোগ প্রদান করা হয়েছে। সরকারের পরিকল্পনা মোতাবেক প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ সুবিধা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে ২০২২-২০২৩অর্থ বছরে ৬১ কিঃমিঃ লাইন নির্মাণ এবং ১টি নতুন উপকেন্দ্র নির্মাণ করে ১০এমভিএ ক্ষমতা বৃদ্ধি পূর্বক  ৯০৭২ জন নতুন গ্রাহকের সংযোগ সুবিধা সৃষ্টিসহ সংযোগ প্রদান করা হয়েছে। ইতোমধ্যে শালিখা, শ্রীপুর,মহম্মদপুর ও মাগুরা সদর উপজেলায় শতভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে।


সম্মানিত গ্রাহকবৃন্দ,

সুষ্ঠু ও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ, গ্রাহক অভিযোগ দ্রুত নিরসন, সময়মত মিটার রিডিং গ্রহন করে বিদ্যুৎ বিল গ্রাহক প্রান্তে পৌঁছানো সহ উন্নত গ্রাহক সেবা প্রদানের লক্ষ্যে সদর দপ্তর ছাড়াও পবিস এর ভৌগলিক এলাকায় ০৩ টি জোনাল অফিস ও ১০টি অভিযোগ কেন্দ্র স্থাপন করে ৩৭০ জন কর্মকর্তা/কর্মচারী নিরলসভাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। বর্তমানে ৩৮ টি ব্যাংক শাখা, ৪৩টি এজেন্ট ব্যাংকিং, অফিস ক্যাশ শাখা, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার , অন-লাইনে টেলিটক এর মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল গ্রহণ করা হচ্ছে। সকল গ্রাহককে বিদ্যুৎ বিলের হার্ডকপি প্রদান ছাড়াও মোবাইল এসএমএস এর মাধ্যমে বিলের পরিমাণ ও পরিশোধের শেষ তারিখ নিশ্চিত করা হচ্ছে। তাই নিয়মিত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করে অত্র পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আর্থিক ভিত মজবুত করা এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কাজে সহযোগিতার জন্য অনুরোধ করছি, এছাড়া বিদ্যুৎ চুরি প্রতিরোধসহ সাশ্রয়ী বিদ্যুৎ ব্যবহারে সকলকে উদ্বুদ্ধ করার আহ্বান জানাচ্ছি।


সম্মানিত সুধী,

বিদ্যুতায়িত লাইনের আওতায় নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ প্রত্যাশির আবেদন দ্রুত নিষ্পত্তি করার স্বার্থে অনলাইনে আবেদন গ্রহণ করা এবং সাথে সাথে আবেদনকারীকে এসএমএস বার্তার মাধ্যমে তার অবস্থান জানিয়ে দেয়া হচ্ছে। অনলাইনে আবেদন ও ওয়্যারিং রিপোর্ট প্রদান করে এবং ই-ক্যাশ এর মাধ্যমে কনজুমার ডিপোজিট (সিডি) এর টাকা জমা দিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ গ্রহণ করে দুর্নীতি রোধ ও স্বল্প সময়ে সংযোগ গ্রহণে সকলের সহযোগিতা কামনা করা হচ্ছে।



সম্মানিত গ্রাহক বৃন্দ

গ্রাম বাংলায় অবস্থিত দেশের বৃহত্তর জনগোষ্ঠিকে কর্মদক্ষ জনশক্তিতে পরিণত করা, বেকার সমস্যা দূরীকরণে বহুমুখী কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে সেচ ব্যতিত শিল্প/বাণিজ্যিক সংযোগের ক্ষেত্রে দুই খুঁটি লাইন নির্মাণ ব্যয় সরকার কর্তৃক নির্বাহ করা হচ্ছে এবং সকল শ্রেণীর গ্রাহকদের ৮০ কিঃওঃ পর্যন্ত ট্রান্সফরমার বিনামূল্যে সরবরাহ করা হচ্ছে। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি তথা বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের এই সিদ্ধান্ত কাজে লাগিয়ে গ্রামাঞ্চলে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শিল্প/বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে‘‘আমার গ্রাম আমার শহর’’ ও ‘পরিচ্ছন্ন গ্রাম-পরিচ্ছন্ন শহর’ তৈরীতে অবদান রাখার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।



পরিশেষে মাগুরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি পরিচালনায় বিগত সময়ের মত স্থানীয় প্রশাসন, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সর্বোপরি গ্রাহক সদস্যের সহযোগিতা, সমিতি বোর্ড পরিচালক ও সকল স্তরের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের নিরলস প্রচেষ্টায় গ্রাহক সেবার মান বৃদ্ধির প্রত্যয় নিয়ে আপনাদের সকলকে আবারও ধন্যবাদ জানিয়ে সকলের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে আমার বক্তব্য  শেষ করছি ।


( দেব কুমার মালো )

জেনারেল ম্যানেজার

মাগুরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি।